Deshprothikhon-adv

১২৮ কোম্পানিতে বাড়ছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: সাধারণ বিনয়োগকারীরা আস্থা হারালেও ১২৮ কোম্পানির শেয়ারের প্রতি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে। ফলে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১২৮ কোম্পানির শেয়ার ক্রয় করছেন প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ধারণ নিয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩০৫ কোম্পানির মধ্যে ১২৮ কোম্পানিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে এবং কমেছে ১১৭টিতে। এক শতাংশের শেয়ার বেড়েছে এমন কোম্পানির সংখ্যা ৩৪টি। বিপরীতে এক শতাংশের ওপর শেয়ার কমেছে এমন কোম্পানির সংখ্য ৪৩টি। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, গত সোমবার পর্যন্ত ৯টি কোম্পানি আগস্ট শেষে শেয়ারধারণের তথ্য দেয়নি। এগুলো হলো- জেমিনি সি ফুড, ঝিলবাংলা সুগার, ন্যাশনাল লাইফ, ফরচুন সুজ, সিএনএটেক্স, এনভয়টেক্স, মিথুন নিটিং, শাশা ডেনিম ও স্টাইল ক্রাফট।
প্রাপ্ত তথ্য মতে, তালিকাভুক্ত ৩০৫টি কোম্পানির মধ্যে আরডি ফুডে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। কোম্পানিটিতে তাদের বিনিয়োগের পরিমাণ মোট শেয়ারের ১৯.২৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, যা আগের মাসের শেয়ারধারণের চেয়ে ৯.৩৮ শতাংশ বেশি। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির প্রভাবে গত মাসে শেয়ারটির দর বেড়েছে ৩২ শতাংশের বেশি।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে : প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে আরডি ফুড। দ্বিতীয় অবস্থানে রযেছে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক। কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ৮.৭৩ শতাংশ বেড়ে ৫০.৩০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। এতে কোম্পানিটির শেয়ার দর বেড়েছে ১৪ শতাংশের বেশি।

তৃতীয় অবস্থানে রিজেন্টটেক্সে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার মোটের ৫.১৫ শতাংশ বেড়ে ৯.৭৯ শতাংশে উন্নীত হয়। এতে শেয়ারটির দর প্রায় ২১ শতাংশ বেড়েছে। চতুর্থ অবস্থানে থাকা নাহী অ্যালুমিনামে ৪.৮০ শতাংশ শেয়ার বেড়ে ১৬.১৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৯ শতাংশের বেশি। তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজে ৪.৬৫ শতাংশ বেড়ে মোটের ২৭.২০ শতাংশে উন্নীত হয়ে পঞ্চম অবস্থানে উঠে এসেছে। এতে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ১৭ শতাংশের বেশি।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ৪ শতাংশ বেড়েছে শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ও ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সে। আগস্ট শেষে কোম্পানি দুটিতে এদের শেয়ার হার ছিল মোটের যথাক্রমে ৮.৮১ ও ২২.২৭ শতাংশ। এ কারণে শেফার্ডের বাজারদর বেড়েছে ১৭ শতাংশ। তবে ডেল্টা লাইফের শেয়ারদর সামান্য কমেছে। এ ছাড়া মোটের ২ থেকে প্রায় ৩ শতাংশ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার বেড়েছে আনলিমা ইয়ার্ন, অ্যাকটিভ ফাইন কেমিক্যাল, এফএএস ফাইন্যান্স, জিএসপি ফাইন্যান্স, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, বারাকা পাওয়ার ও বিডি ফাইন্যান্সে। এর মধ্যে আনলিমা ইয়ার্নের দর ৪ শতাংশ কমলেও বাকিগুলোর বাজারদর ১১ থেকে ৩৮ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। শুধু অ্যাকটিভ ফাইনের শেয়ারদরে তেমন পরিবর্তন হয়নি।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার কমপক্ষে ১ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ৩ শতাংশ বেড়েছে আনলিমা ইয়ার্ন, অ্যাকটিভ ফাইন কেমিক্যাল, এফএএস ফাইন্যান্স, জিএসপি ফাইন্যান্স, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, বারাকা পাওয়ার ও বিডি ফাইন্যান্স, দেশবন্ধু পলিমার, পদ্মা লাইফ, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, আইপিডিসি, লিনডে বিডি, ন্যাশনাল ফিড, লংকাবাংলা, ইসলামিক ফাইন্যান্স, অগ্নি সিস্টেমস, খুলনা পাওয়ার, ইস্টার্ন হাউজিং, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং, গোল্ডেন হারভেস্ট, এস আলম কোল্ড রোল্ড স্টিল, ন্যাশনাল পলিমার, ওয়েস্টিন মেরিন, ফনিক্স ফাইন্যান্স, সাইফ পাওয়ারটেক, কুইনসাউথ টেক্সটাইল ও আমান ফিড লিমিটেডে।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে : প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ সবেচেয়ে বেশি কমেছে লিগ্যাসি ফুটওয়্যারে। আগস্টে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ১৮.৮০ শতাংশ কমে নেমেছে ৫.৪৪ শতাংশে। অস্বাভাবিক লেনদেন ও মূল্যবৃদ্ধির অভিযোগে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন গত ১৬ আগস্টের পর বন্ধ রেখেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। গত মাসে প্রথমার্ধেই লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের বাজারদর পৌনে ২৩ শতাংশ বেড়ে ২৬৩ টাকা ছাড়িয়েছিল। সংশ্নিষ্টরা ধারণা করছেন, শাস্তিমূলক ব্যবস্থার খবর আগাম জেনে কিছু প্রতিষ্ঠান আগেই শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছে।

প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার কমার দিক থেকে এরপর খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং থেকে প্রায় ১০ শতাংশ শেয়ার কমেছে। জুলাইয়ের শেষে কোম্পানিটিতে তাদের শেয়ার ছিল মোটের ১৯ দশমিক ৬২ শতাংশ, যা আগস্ট শেষে নেমেছে ৯ দশমিক ৭৭ শতাংশে। এতে শেয়ারটির দর সাড়ে ৬ শতাংশ কমে ১৯ টাকায় নামে। বিনিয়োগ প্রত্যাহারে এর পরের অবস্থানে থাকা সিমটেক্স থেকে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার কমেছে ৯ দশমিক ৬৬ শতাংশ। গত মাসে কোম্পানিটিতে এদের শেয়ার ছিল মোটের ১৫ দশমিক ৮০ শতাংশে। তবে বড় বিনিয়োগকারীদের বিপুল বিনিয়োগ প্রত্যাহারের পরও কোম্পানিটির দর প্রায় ২১ শতাংশ বেড়ে ৪৬ টাকা হয়।

প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার কমার দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পেনিনসুলা চিটাগং। কোম্পানিটি থেকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ৯.৪৪ শতাংশ কমে ৯.৯২ শতাংশে নেমে গেছে। তৃতীয় অবস্থানে থাকা সায়হাম টেক্সটাইল থেকে ৭.৬৮ শতাংশ কমে ৩৩.৮১ শতাংশে নেমেছে। এ কারণে পেনিনসুলার বাজারদর ১০ শতাংশ কমে গেছে। তবে চতুর্থ স্থানে থাকা সায়হামটেক্সে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগক ৪১.৪৯ শতাংশ থেকে ৩৩.৮১ শতাংশে নেমে গেলেও এর শেয়ারদর বেড়েছে ১৫ শতাংশের বেশি।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, আগস্টে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ৪ থেকে প্রায় ৫ শতাংশ কমেছে ফারইস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও আনোয়ার গ্যালভানাইজিংয়ে। এ কারণে ফারইস্ট লাইফের শেয়ারদর ২ শতাংশ ও আনোয়ার গ্যালভানাইজিংয়ের দর ১৮ শতাংশ কমে গেছে। এ ছাড়া ৩ থেকে ৪ শতাংশ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে জেএমআই সিরিঞ্জেস, হামিদ ফেব্রিক্স, আজিজ পাইপস ও নূরানী ডাইংয়ে।

Comments are closed.