Deshprothikhon-adv

ইস্যু মূল্যের নিচে ভ্যানগার্ড এএমএল ফান্ড

0

vanguard-aml-rupali-bank-inner_1শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: লেনদেন শুরু প্রথম কার্যদিবসেই ইস্যু মূল্যের নিচে নেমে এসেছে সদ্য তালিকাভুক্ত ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড। সোমবার ফান্ডটির সমাপনী বাজার দর ছিল ৯.৫০ টাকা।ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, সোমবার দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে একযোগে লেনদেন শুরু করে ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড। এসময় ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ার সর্বোচ্চ ১১.১০ টাকা হলেও সর্বনিম্ন ৯.২০ টাকায় হাতবদল হতে দেখা গেছে। দিনশেষে ফান্ডটির ৩ লাখ ৫০ হাজার ৯১৫টি ইউনিট হাতবদল হয়। এছাড়া চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ফান্ডটির কোন ইউনিট লেনদেন হয়নি।

সূত্র জানায়, সোমবার উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু করে ফান্ডটি। যার ট্রেডিং কোড ‘ঠঅগখজইইঋ’। ফান্ডটির ডিএসইতে ট্রেডিং আইডি হবে ১২১৯৮। আর সিএসইর স্কিপ আইডি-২১০৪৭।

জানা গেছে, এর আগে ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর পর্যন্ত প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন ও চাঁদা গ্রহণ করে। ফান্ডের প্রতি ইউনিটের অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। আর ৫০০ শেয়ার নিয়ে এর মার্কেট লট।

মিউচ্যুয়াল ফান্ডটির আকার ২০০ কোটি টাকা। ফান্ডটিতে উদ্যোক্তার অংশ ৪০ কোটি টাকা। এ ছাড়া প্রি-আইপিও প্লেসমেন্টের মাধ্যমে ৬৫ কোটি টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। বাকি ৯৫ কোটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে সংগ্রহ করা হয়েছে। আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত ছিল ৩৮ কোটি টাকার ইউনিট। ইউনিট সংখ্যা ৩ কোটি ৮০ লাখ, আর মার্কেট লট সংখ্যা ৭৬ হাজার।

অনিবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ছিল ৯৫ লাখ ইউনিট। সমসংখ্যক ইউনিট সংরক্ষিত ছিল মিউচুয়াল ফান্ডগুলোর জন্য। অন্যান্য প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত ছিল ৩ কোটি ৮০ লাখ ইউনিট।

ফান্ডটির উদ্যোক্তা রূপালী ব্যাংক লিমিটেড। ফান্ডটি পরিচালনা করবে ভ্যানগার্ড অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। ফান্ডটির ট্রাস্টি ও কাস্টডিয়ান হিসেবে কাজ করছে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ২ আগস্ট ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ডের প্রসপেক্টাস অনুমোদন করে। ক্লোজইন্ড এ মিউচ্যুয়াল ফান্ডটির মেয়াদ ১০ বছর।

Comments are closed.