Deshprothikhon-adv

জঙ্গি হামলার হুমকিতে ফের তিন বাঙ্গালী (ভিডিসহ)

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

৩ iasশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা:  গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার চার দিনের মাথায় আরও ভয়াবহ হামলার হুমকি দিয়েছে তিন আইএস সদস্য। শুক্রবার রাতে ওই হামলায় অংশ নেয়া সহযোদ্ধাদের প্রশংসাও করে তারা।

ওই ভিডিওতে তিন তরুণকে বাংলায় কথা বলতে দেখা যায়। সুস্পষ্ট বাংলায় কথা বললেও ওই তিন তরুণ কোন দেশের নাগরিক তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে তিনজনের একজনকে ক্লোজ আপ ওয়ান তারকা তাহমিদ রহমান শফি বলে ‘চিহ্নিত’ করছেন ফেসবুকের অনেকেই।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) এক ভিডিওবার্তায় এ হুমকি দেয় যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় আইএসের কথিত রাজধানী রাকায় অবস্থানরত তিন তরুণ। সাইট ইনটেলিজেন্ট গ্রুপের ওয়েব সাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে ভিডিওচিত্রটি ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে। ভিডিওতে এক তরুণকে বলতে শোনা যায়, ‘শেখ আদনানির’ নির্দেশে তারা ‘খ্রিস্টান, ইহুদি ক্রুসেডার ও তাদের মিত্রদের’ বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ করছে এবং তা কোনোভাবেই ‘কৌতুক নয়’।

ভিডিওতে এক জঙ্গি বলছে, ‘বাংলাদেশের তাগুদ সরকার, এদের সমর্থক ও এদের কর্মচারীদের উদ্দেশে, আমি তোমাদেরকে প্রশ্ন করতে চাই কেমন করে তোমরা ডেমোক্রেসিকে (গণতন্ত্রকে) সাপোর্ট করো? ডেমোক্রেসি নামক এই শিরকি মতবাদকে তোমরা কিভাবে সাপোর্ট করো?’

‘তোমরা কি জানো না ডেমোক্রেসি হচ্ছে সেই মতবাদ যেখানে বলা হয় ক্ষমতা এবং আইন প্রণয়নের ক্ষমতা মানুষের হাতে, যেখানে আল্লাহ সুবহানা তায়ালা বলে দিয়েছেন আইন প্রণয়নের ক্ষমতা একমাত্র আল্লাহর।’

ওই  জঙ্গি আরও বলে, ‘আমি বাংলাদেশের তাগুত (সীমালঙ্ঘনকারী বা আল্লাহদ্রোহী) সরকারের উদ্দেশে বলতে চাই, যে জিহাদ আজ বাংলাদেশে এসেছে, যে জিহাদ তোমরা প্রত্যক্ষ করছো, এরকম জিহাদ তোমরা এর আগে কখনও দেখো নাই। এই জিহাদ হচ্ছে সেই জিহাদ যার প্রতিশ্রুতি রাসুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দিয়ে গিয়েছিলেন, সুতরাং তোমরা কখনওই এই জিহাদকে বন্ধ করতে পারবে না।’

জিহাদ সফল করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে ওই জঙ্গি আরও বলে, ‘যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা জয়ী হই এবং তোমরা পরাজিত হও এবং সারাবিশ্বে খিলাফত প্রতিষ্ঠিত না হয়। একে তোমরা কখনওই রুখতে পারবে না, সুতরাং এ চেষ্টা করে কোনো লাভ নেই।’

হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলে, ‘বাংলাদেশে তোমরা এখন যা দেখছো তা জিহাদের একটি ঝলক ছাড়া আর কিছু নয়…বাংলাদেশে যা দেখেছো সেটা রিপিট, রিপিট এবং রিপিট হবে, যতক্ষণ না পর্যন্ত শরিয়া প্রতিষ্ঠিত হয়… আমরা শেষ পর্যন্ত তোমাদের সাথে লড়ে যাব, হয় আমরা বিজয়ী হব, অথবা শাহাদাৎ লাভ করব।’

এরপর দ্বিতীয় জঙ্গি বাংলাদেশের সব সরকারকে দোষারোপ করে বলে, ‘আমরা যদি বাংলাদেশের দিকে তাকাই তবে এই ভূমিতে সমস্ত সরকার আল্লাহর নাজিলকৃত বিধানকে মানবরচিত আইন দ্বারা পরিবর্তন করেছে। যার ফলে তারা তাগুত হয়ে যায়; তারা কাফের হয়ে যায় এবং তাদের বিরুদ্ধে জিহাদ অর্থাৎ সশস্ত্র কিতাল করা ফরজে আইন হয়ে যায়।’ তৃতীয় জঙ্গি জিহাদিদের উদ্ধুব্ধ করে গুলশানে হামলার দিকে ইঙ্গিত করে বলে, বাংলাদেশে যে কাজটি তারা করেছেন, সেটি চমৎকার একটি কাজ।

উল্লেখ্য, ঢাকার কূটনীতিকপাড়া গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্টে শুক্রবার (১ জুলাই) রাত পৌনে ৯টার দিকে একদল সসস্ত্র জঙ্গি ঢুকে দেশি-বিদেশি অতিথিদের জিম্মি করে। প্রায় ১২ ঘণ্টা পর শনিবার সকালে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কমান্ডো অভিযানের মধ্য দিয়ে রেস্টুরেন্টটি নিয়ন্ত্রণ নেয় নিরাপত্তা বাহিনী।

অভিযানে ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার এবং ২০ জনের জবাই করা মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতদের মধ্যে ১৭ জনই বিদেশি। বাকিরা বাংলাদেশি। এ ছাড়া জঙ্গিদের প্রতিহত করতে গিয়ে নিহত হন গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল করিম ও বনানী থানার ওসি সালাহউদ্দিন খান।

Comments are closed.