Deshprothikhon-adv

অলিম্পিক এক্সসরিজের হঠাৎ এত লেনদেন বাড়ার কারন কি!

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

oal lagoশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারে আজ সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে দাপুটে অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাতের কোম্পানি অলিম্পিক এক্সেসরিজ লিমিটেড। অন্যদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই অবস্থানে ছিল চামড়া খাতের এ্যাপেক্স ফুটওয়্যার। উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

ডিএসই ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, আজ, বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) অলিম্পিক এক্সেসরিজের মোট ৭২ লাখ ৩৯ হাজার ৮১৭টি শেয়ার ৩ হাজার ২৭২ বার হাতবদল হয়। যার বাজার মূল্য ১৯ কোটি ২২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। হঠাৎ করে কোম্পানিটির লেনদেনে আধিক্যের তেমন কোন কারণ জানা যায়নি।

oalতবে বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জুন ক্লোজিং’র অপেক্ষায় থাকায় কোম্পানিটিকে ঘিরে বিনিয়োগকারীদের সম্পৃক্ততা বাড়তে পারে। পাশঅপাশি গেল কয়েক কার্যদিবসেও কোম্পানিটির শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের সম্পৃক্ততা ছিল বেশ ভাল। যদিও শেয়ার দর ছিল মিশ্র প্রবণতায়।

বাজার সংশ্লিষ্টদের দাবি, গেল মাসের মাঝামাঝি সময় কোম্পানিটির শেয়ার তালিকাভুক্তির পর সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে এসেছিল। যার ফলে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অনেকেই শেয়ার সংগ্রহ করেছিল। তাই বিনিয়োগকারীদের সর্তকতার সাথে বিনিয়োগে যাওয়া উচিত।

oal 2এদিকে, আজ ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা অন্যান্যের মধ্যে এ্যাকমি ল্যাবের শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ৮ লাখ ৭৩ হাজার টাকা, ন্যাশনাল ফিডের ১০ কোটি ৫৪ লাখ ১৭ হাজার টাকা, তশরিফার ৯ কোটি ৪০ লাখ ৪৬ হাজার টাকা, ওরিয়ন ইনফিউশনের ৮ কোটি ৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, ড্রাগন সোয়েটারের ৭ কোটি ৩২ লাখ ৫৬ হাজার টাকা, ইবনেসিনা’র ৭ কোটি ১৬ লাখ ৮৭ হাজার টাকা, স্কয়ার ফার্মার ৬ কোটি ৩৭ লাখ ১৪ হাজার টাকা, আমান ফিডের ৬ কোটি ৩০ লাখ ৩৫ হাজার টাকা,

লংকা বাংলা ফাইন্যান্সের ৬ কোটি ২ লাখ ৭২ হাজার টাকা, খান ব্রাদার্সের ৫ কোটি ৭৯ লাখ ৫ হাজার টাকা, ইসলামী ব্যাংকের ৫ কোটি ২২ লাখ ১১ হাজার টাকা, লাফার্জ সুরমার ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা,

বিবিএসের ৪ কোটি ৬৮ লাখ ৭৪ হাজার টাকা, বিএসআরএম লিমিটেডের ৪ কোটি ৬১ লাখ ২১ হাজার টাকা, কাশেম ড্রাইসেলসের ৪ কোটি ৪৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, ইউনাইটেড পাওয়ারের ৩ কোটি ৭৭ লাখ ৩৯ হাজার টাকা, শাহজিবাজার পাওয়ারের ৩ কোটি ৫০ লাখ ৯১ হাজার টাকা।

Comments are closed.