Deshprothikhon-adv

দুদক ১৭ বীমা কোম্পানির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামছে

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

investশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা ব্যয় দেখিয়ে গ্রাহকের দেড় হাজার কোটি টাকার বেশি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ১৭টি বীমা কোম্পানির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানে নামছে।  বীমা কোম্পানিগুলো হল- পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স, জীবন বীমা করপোরেশন,

ফারইস্ট ইসলামী লাইফ, পদ্মা ইসলামী লাইফ, গোল্ডেন লাইফ, সন্ধানী লাইফ, প্রগতি লাইফ, সানফ্লাওয়ার লাইফ, সান লাইফ, প্রাইম ইসলামী লাইফ, মেঘনা লাইফ, ডেল্টা লাইফ, রূপালী লাইফ, হোমল্যান্ড লাইফ, প্রগ্রেসিভ লাইফ, বায়রা লাইফ ও ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্স।

দুর্নীতি অনুসন্ধানে এরই দুদকের উপপরিচালক মো. জালাল উদ্দিন ও উপসহকারী পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে দুই সদস্যের টিম গঠন করেছে কমিশন। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রণব জানান, দুদকের কাছে আসা অভিযোগে বলা হয়েছে ২০০৯ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ব্যবস্থাপনা ব্যয়ের নামে অবৈধভাবে এই কোম্পানিগুলো ব্যয় করেছে ১ হাজার ৯৭৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা, যার শতকরা ৯০ ভাগ টাকা গ্রাহকের। এই ১৭টি কোম্পানির মধ্যে সাতটি অবৈধ ব্যয়ের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে।

এগুলো হল- পপুলার লাইফ (২৯৩ কোটি ৩৮ লাখ টাকা), জীবন বীমা করপোরেশন (২৮৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা), ফারইস্ট ইসলামী লাইফ (২০০ কোটি ৫১ লাখ টাকা), পদ্মা ইসলামী লাইফ (১৬৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকা), গোল্ডেন লাইফ (১৬৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা), সন্ধানী লাইফ (১৫৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা) এবং প্রগতি লাইফ (১৪৬ কোটি ৯৬ লাখ টাকা)।

প্রণব বলেন, বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের কাছে কোম্পানিগুলোর দাখিল করা তথ্যে এই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গিয়েছে। দুদক পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন এই অনুসন্ধানের তদারকের দায়িত্ব পেয়েছেন বলেও জানান তিনি।

Comments are closed.