Deshprothikhon-adv

ডিএসইএক্স ইনডেক্সে বাজার স্বাভাবিক থাকার আভাস

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

dse-cse lagoশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারে আজ সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস সুচকের কিছুটা উর্ধমুখীর মধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন কমে শেষ হয়েছে। তবে দিনভর উঠানামার মধ্যে থাকলে দিনশেষে ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭ পয়েন্ট ও সিএসইতে প্রধান সূচক সিএসসিএক্স বেড়ে ২৪ পয়েন্ট। আজ ডিএসই ও সিএসইতে গত কার্যদিবসের চেয়ে মোট লেনদেন কমেছে ১৬৪ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। এছাড়া আজ উভয় পুঁজিবাজারে মোট লেনদেন হয়েছে ৩৪৬ কোটি ২৬ লাখ টাকা।

Screenshotগত মঙ্গলবার উভয় পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছিল ৫১০ কোটি ৭৩ লাখ টাকা টাকা। সুতরাং গত কার্যদিবসের তুলনায় এদিন উভয় পুঁজিবাজারে লেনদেন কমেছে ১৬৪ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। ডিএসই ও সিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। আজ ডিএসইতে টাকার অঙ্কে মোট লেনদেন হয়েছে ৩২৩ কোটি ৩১ লাখ টাকা। গত মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছিল ৪৭১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা। সুতরাং এক কার্যদিবসের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৪৮ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

10বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়- ডিএসইএক্স ইনডেক্স লেনদেনের শুরু থেকেই বৃদ্ধি পেতে থাকে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এবং লেনদেন উভয়ই বাড়তে থাকে এবং দিন শেষে ডিএসইএক্স ইনডেক্স বুলিশ ক্যান্ডেলস্টিক তৈরি করে। ডিএসই এক্স ইনডেক্স ৭.৯১ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে ৪৪২০.৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিনের তুলনায় ০.১৭% বৃদ্ধি পেয়েছে।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৪৩০০ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৪৫০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আজ বাজারে এম.এফ.আই এর মান ছিল ৭৪.৮৭ এবং আল্টিমেট অক্সিলেটরের মান ছিল ৫১.৮১। ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর জঝও এর মান হচ্ছে ৫৮.১৭। পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, বাজারে চাহিদা বেশী ছিল ১০০-৩০০ কোটি টাকার পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ১৯.৬৬% বেড়েছে।

DSE-INDEX 8-6অন্যদিকে বেড়েছে ৩০০ কোটি টাকার উপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ১৯.০১% বেশী। অন্যদিকে ০-২০ এবং ২০-৫০ কোটি টাকার পরিশোধিত মুলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেনের পরিমান গতকালের তুলনায় ১৮.০২% এবং ৯.৮৫% কমেছে। পিই রেশিও ৪০ এর উপরে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৫.২২% কমেছে। অন্যদিকে পিই রেশিও ২০-৪০ এর মধ্যে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ২৭.৮২% বেড়েছে।

TEX 8-6ক্যাটাগরির দিক থেকে এগিয়ে ছিল ‘এন’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ৪৭.৬২% বেশী ছিল। বেড়েছে ‘জেড’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ৩৫.৭২% বেশী ছিল। এদিকে ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭ দশমিক ৯১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৪২০ পয়েন্টে, ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ০ দশমিক ৬২ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৫ পয়েন্টে এবং ১ দশমিক ৯২ পয়েন্ট বেড়ে ডিএসই-৩০ সূচক দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭৪১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩১৮টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭০টির, কমেছে ৮৬টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ৬২টি কোম্পানির শেয়ার দর। এছাড়া টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো-  একমি ল্যাবরেটরিজ, ফার কেমিক্যাল,  লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, শাহজিবাজার পাওয়ার, বিএসআরএম লিমিটেড, মবিল যমুনা, ব্র্যাক ব্যাংক,  অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, পাওয়ার গ্রিড এবং খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন।

CSE INDEXঅন্যদিকে সিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেনের পরিমান ২২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। গত মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছিল ৩৯ কোটি ২৬ লাখ টাকার শেয়ার। সুতরাং এক কার্যদিবসের ব্যবধানে সিএসইতে শেয়ার লেনেদেন কমেছে ১৬ কোটি ৩১ লাখ টাকার বেশি।

সিএসই’র প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ২৪ দশমিক ২৭ পয়েন্ট বেড়ে ৮ হাজার ২৭২ পয়েন্টে, সিএএসপিআই সূচক ৩৭ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট বেড়ে ১৩ হাজার ৫৯৬ পয়েন্টে, সিএসই-৫০ সূচক ১ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। তবে সিএসই-৩০ সূচক ২০ দশমিক ৬২ পয়েন্ট কমে ১২ হাজার ৫৪০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২২৬টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১২২টির, কমেছে ৬৭টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ৩৭টি কোম্পানির শেয়ার দর।

টাকার অঙ্কে এদিন সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- একমি ল্যাবরেটরিজ, ইউনাইটেড এয়ার, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, ফার কেমিক্যাল, বিএসআরএম লিমিটেড, ইউনাইটেড পাওয়ার, রিজেন্ট টেক্সটাইল, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন, সাইফ পাওয়ারটেক এবং শাহজিবাজার পাওয়ার।

 

Comments are closed.