Deshprothikhon-adv

অবশেষে আরএন স্পিনিংয়ের মামলার নিষ্পত্তি

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

rn spiningশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটে অবশেষে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের রাইট শেয়ার নিয়ে জালিয়াতি সংক্রান্ত মামলার নিষ্পত্তি করেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এছাড়া ৫ বছরের যাবতীয় রাইট শেয়ার সংশ্লিষ্ট পরিচালক এবং বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বন্টন করার সুযোগ রেখে মামলা নিষ্পত্তি করেছে উচ্চ আদালত।

প্রধান বিচারপতির নের্তৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগের এক নাম্বার বেঞ্চ রোববার এ মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়। কোম্পানিটির আইনজীবী মাছুম শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে। আইনজীবী ব্যারিষ্টার মাসুম বলেছেন, আদালতের রায়ে নতুন করে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) ডেকে রাইট বন্টনের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। রোববার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগের এক নাম্বার বেঞ্চ এ মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়।

আপিল বিভাগের ১ নম্বর কোর্টে আরএন স্পিনিংয়ের রাইট সংক্রান্ত মামলা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এ বেঞ্চের অপর তিন বিচারক হচ্ছেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসাইন হায়দার। তিনি বলেন, মামলা নিষ্পত্তি হওয়ায় এখন থেকে স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে কোম্পানিটি। এতে করে কোম্পানিটি ডিভিডেন্ড, শেয়ার হস্তানান্তর সংক্রান্ত বাধা দূর হলো।

সূত্র জানায়, কিছু পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে এ মামলার নিষ্পত্তি করা হয়েছে। তবে রায়ে কী ধরনের পর্যবেক্ষণের কথা বলা হয়েছে তা রায়ের কপি বের হওয়ার আগে স্পষ্টভাবে জানার সুযোগ নেই। এদিকে, আর এন স্পিনিং এর কোম্পানি সচিবের সাথে এ বিষয় যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায় নি।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে সর্বশেষ ৩৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড প্রদান করেছিল আরএন স্পিনিং। এদিকে, আ্ইনী জটিলতার কারণে গেল ৪ বছরে কোম্পানিটি ডিভিডেন্ড প্রদান করতে পারে নি। ২০১১ সালে আরএন স্পিনিং ১:১ হিসেবে রাইট শেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ১০ টাকা প্রিমিয়ামসহ রাইট শেয়ারের দর প্রস্তাব করা হয় ২০ টাকা।

২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে বিএসইসি কোম্পানির রাইট প্রস্তাব অনুমোদন করে। নির্ধারিত সময়ে সাধারণ শেয়ারহোল্ডাররা রাইট শেয়ারের টাকা জমা দিয়ে তাদের প্রাপ্য শেয়ার কিনে নিলেও এ বিষয়ে জালিয়াতির আশ্রয় নেয় কোম্পানির উদ্যোক্তারা পরিচালকরা। তারা কোনো টাকা জমা না দিয়েই ব্যাংকের জাল কাগজপত্র জমা দিয়ে বিএসইসিকে জানায়, তারা ওই শেয়ার কিনেছে।

এই জালিয়াতি ধরা পড়ে গেলে বিএসইসি ২০১২ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর আরএন স্পিনিংয়ের উদ্যোক্তা-পরিচালকদের শেয়ার বিক্রি, হস্তান্তর, বন্ধক ও উপহার দেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। আর একে কেন্দ্র করেই শুরু হয় মামলা-পাল্টা মামলা। আর এ মামলার কারণে ২০১২ সাল থেকে কোনো প্রকার লভ্যাংশ ঘোষণা বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করতে পারছেনা কোম্পানিটি।

Leave A Reply