Deshprothikhon-adv

টানা দরপতন পর ডিএসইতে ১০০ পয়েন্ট বৃদ্ধি

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

dse lago curentশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারে আজ সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে সুচকের উর্ধ্বমুখী প্রবনতার মধ্যে দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। টানা দরপতনের পর আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মূল্যসূচক বেড়েছে ১০০.৭৭ পয়েন্ট। একই সাথে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বেড়েছে ২০০.৩৬ পয়েন্ট। এদিকে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন নীতি গ্রহণের ঘোষণার ফলে আজ সুচকের উর্ধ্বমুখী প্রবনতা ছিল বলে বাজার বিশ্লেষকরা মনে করেন।

গত সোমবার উল্লেখ্য ব্যাংকের ধারণ করা শেয়ার ও সাবসিডিয়ারি কোম্পানিকে দেওয়া ঋণ সাবসিডিয়ারির মূলধনে রূপান্তরের সুযোগ করে দেওয়ার নীতি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সোমবার বাংলাদেশ বাংলাদেশ ব্যাংক এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানায়। এতে একদিকে সাবসিডিয়ারির মূলধন বাড়বে, অপরদিকে তাদের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ সীমা কমে আইনি সীমার মধ্যে নেমে আসবে। এভাবে সকল ব্যাংকই আইনি সীমার মধ্যে চলে আসবে। এ প্রক্রিয়ায় অতিরিক্ত বিনিয়োগ সমন্বয়ের জন্য কোনো শেয়ার বিক্রি করতে হবে না।

মঙ্গলবার ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ১০০.৭৭ পয়েন্ট বেড়ে দাড়িয়েছে ৪২৭২.১৮ পয়েন্টে। এর আগে টানা ৭ দিনের পতন হয় ডিএসইতে। যাতে মূল্যসূচক কমেছিল ১৮৮.২২ পয়েন্ট। ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪০৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। যা সোমবার হয়েছিল ৪৬১ কোটি ১৮ লাখ টাকা। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩১৬টি ইস্যুর মধ্যে দর বেড়েছে ২৬৩টির, কমেছে ২৯টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির দর।

সোমবারের ন্যায় মঙ্গলবারও লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে এমজেএল। এ কোম্পানির ২২ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনের দ্বিতীয় স্থানে থাকা কেয়া কসমেটিকসের ১৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

১১ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিএসআরএম লিমিটেড। লেনদেনে এরপর রয়েছে: লিন্ডে বিডি, ইউনাইটেড পাওয়ার, স্কয়ার ফার্মা, ইবনে সিনা, বেক্সিমকো ফার্মা, এমারেল্ড অয়েল, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স। অপর পুঁজিবাজার সিএসইতে সিএসসিএক্স সূচক ২০০.৩৬ পয়েন্ট বেড়ে দিনশেষে ৭৯৯৫.৩০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হয়েছে ২৩ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট। লেনদেন হওয়া ২৪০টি ইস্যুর মধ্যে দর বেড়েছে ১৯৩টির, কমেছে ৩২টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টির।

Leave A Reply