Deshprothikhon-adv

ডিএসইতে কোম্পানির সংখ্যা বেশি নয়, বিনিয়োগকারী বেশি

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page
share news dsc
DSC

শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) খুব শিগগিরই চালু হতে যাচ্ছে এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ফান্ড (ইটিএফ) পণ্য। সোমবার (১১ এপ্রিল) নেপাল স্টক এক্সচেঞ্জ প্রতিনিধি দল ডিএসই পরিদর্শন শেষে বৈঠককালে সংস্থাটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. স্বপন কুমার বালা এ তথ্য জানান।

পরিদর্শক দলে সিকিউরিটিজ বোর্ড অব নেপাল, নেপাল স্টক এক্সচেঞ্জের বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউজের প্রতিনিধি এবং স্টক ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব নেপাল এর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

স্বপন কুমার বালা বলেন, ‘ডিএসই ২০১৩ সালে ডিমিউচ্যুয়ালাইজড হয়েছে, যার ফলে পরিচালনা পর্ষদ এবং ব্যবস্থাপনায় বড় ধরনের পরিবর্তন হয়েছে। ডিএসইতে তালিকাভুক্ত কোম্পানির সংখ্যা খুব বেশি নয়, কিন্তু এখানে বিনিয়োগকারীর সংখ্যা অনেক বেশি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ডিএসই বর্তমানে শুধুমাত্র ইকুইটিভিত্তিক মার্কেট হলেও আগামিতে ডিএসই পণ্যের বৈচিত্র্যতা আনয়নে কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য অত্যাধুনিক ট্রেডিং সফটওয়্যার চালু করা হয়েছে। বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেনের জন্য ‘ডিএসই-মোবাইল’ নামে একটি অ্যাপ চালু করা হয়েছে।

ভবিষ্যতে নেপালের সাথে ডিএসই’র সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে, যাতে উভয়েই তাদের উন্নয়ন কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। ডিএসইতে তালিকাভুক্ত কোম্পানির সংখ্যা খুব বেশী নয়, কিন্তু এখানে বিনিয়োগকারীর সংখ্যা অনেক বেশী।

তিনি আরও বলেন, ইতিমধ্যে পরবর্তী প্রজন্মের অত্যাধুনিক ট্রেডিং সফটওয়্যার চালু করা হয়েছে। বিনিয়োগকারীদের সুবিধার্থে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেনের জন্য ‘ডিএসই-মোবাইল’ নামে একটি অ্যাপ চালু করা হয়েছে।

এর আগে নেপালের প্রতিনিধিরা সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেড (সিডিবিএল) এবং একটি ব্রোকারেজ হাউজ পরিদর্শন করেন। এর আগে নেপালের প্রতিনিধি দল ডিএসই পরির্দশন করেন। পাশাপাশি নেপালের প্রতিনিধিবৃন্দ সিডিবিএল এর কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হতে সিডিবিএল এবং একটি ব্রোকারেজ হাউজ পরিদর্শন করেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ডিএসই’র প্রধান অর্থকর্মকর্তা জনাব আবদুল মতিন পাটওয়ারী, প্রকাশনা ও জনসংযোগ বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক জনাব মোঃ শফিকুর রহমান, ট্রেক অ্যাফেয়ার্স বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক জনাব আসাদুর রহমান এবং রিচার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগের ব্যবস্থাপক মিসেস কামরুন নাহার।

Leave A Reply