Deshprothikhon-adv

ডিএসই করমুক্ত লভ্যাংশের সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page
latest share news
Dhaka Stock Exchange Ltd.

শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারের প্রতি সাধারন বিনিয়োগকারীদের অনাগ্রহ কারনে তাদেরকে আগ্রহী করতে আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭) বাজেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ঘোষিত নগদ লভ্যাংশের আয়ের করমুক্ত সীমা ১ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব দিবে ঢাকা স্টাক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। বর্তমানে বিনিয়োগকারীরা ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত লভ্যাংশ আয় করমুক্ত সুবিধা পাচ্ছেন।

১০ এপ্রিল রবিবার ডিএসইর বোর্ড সভায় লভ্যাংশের আয়ের সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব সুপারিশ আকারে গ্রহণ করা হতে পারে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। এছাড়া ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবনায় আরও যে সব সুপারিশ করা হবে, সেগুলোও বোর্ড সভায় অনুমোদিত হবে।

সভায় পর্ষদ সদস্যদের অনুমোদন নিয়ে বাজেট প্রস্তাবনা চুড়ান্ত করে তা অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, এফবিসিসি ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড’র (এনবিআর) কাছে পাঠানো হবে। এনবিআর’র সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় প্রস্তাবনাগুলো নিয়েই আলোচনা করবে ডিএসই। আগামী ৮ মে সকাল ১১টায় ডিএসইর সঙ্গে এনবিআরের প্রাক-বাজেট আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, চলতি অর্থবছরের (২০১৫-১৬) বাজেট প্রস্তাবনায় করমুক্ত লভ্যাংশের সীমা ৫০ হাজার টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছিল ডিএসই। এর প্রেক্ষিতে বাজেটে করমুক্ত লভ্যাংশের সীমা ২৫ হাজার টাকা করা হয়। যা আগের অর্থবছরে ছিল ২০ হাজার টাকা এবং তার আগের বছর ছিল ১৫ হাজার টাকা।

করমুক্ত লভ্যাংশের সীমা বাড়ানোর বিষয়ে ডিএসইর যৌক্তিকতা হচ্ছে- শেয়ারবাজারের অস্থিরতার কারণে বিনিয়োগকারীদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। এখন লভ্যাংশ আয়ের ১ লাখ টাকা করমুক্ত সুবিধা দিলে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতি কিছুটা কমিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাবেন। এতে বিনিয়োগকারীরা শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে আগ্রহী হবেন। যা বাজারের গতিশীলতা ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে ভূমিকা রাখবে।

ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, আমি মনেকরি বিনিয়োগকারীদের করমুক্ত লভ্যাংশের সীমা বাড়ানো উচিত। এতে বাজারে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ আয় ১ লাখ টাকা করমুক্ত রাখার পাশাপাশি বাজারে গতি বাড়াতে ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে আগামী অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবনায় পাঁচ বছরের জন্য স্টক এক্সচেঞ্জের শতভাগ আয়কর অব্যাহতি, শেয়ার লেনদেনে ব্রোকারেজ হাউসের কর হার কমানো, সকল অজড় সিকিউরিটিজের স্ট্যাম্প ডিউটি বাদ দেওয়ার দাবি জানাবে ডিএসই।

বাজেট প্রস্তাবনার বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্বপন কুমার বালা বলেন, বাজেট কি কি প্রস্তাব দেওয়া হবে তা এখনো চুড়ান্ত হয়নি। ডিএসইর আগামী বোর্ড সভায় বাজেট প্রস্তাবনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাজেট প্রস্তাব চুড়ান্ত করার পরই তা জানানো হবে।

Leave A Reply