Deshprothikhon-adv

ডিএসই সিএসইতে বাজার মুলধন ও পিই রেশিও বেড়েছে

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page
dse-cse
DSE | CSE

শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারে সপ্তাহজুড়ে বাজার পরিস্থিতি স্থিতিশীলতার আভাসে সুচক ও লেনদেন বাড়ছে। টানা কয়েক সপ্তাহ দরপতনের পর ইতিবাচক ধারায় ফিরছে দেশের পুঁজিবাজার। গেল সপ্তাহে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জেই সব ধরণের সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণ।

বেড়েছে বাজার মূলধন ও পিই রেশিও। একই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন হওয়া অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিটের দর। সপ্তাহ শেষে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন বেড়েছে ৩৬৫ কোটি টাকা বা ২১ দশমিক ৮১ শতাংশ।

বাজার সংশ্লিষ্টরা জানান, ধারাবাহিক দরপতন ঠেকাতে স্টেক হোল্ডারদের নিয়ে নানামুখি তৎপরতা আর সরকারের পক্ষ থেকে বর্তমান বাজারের পরিস্থিত উন্নয়নের নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের পরামর্শে ঊর্ধ্বমূখী ধারায় ফিরেছে শেয়ারবাজার।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গেল সপ্তাহে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রথম কার্যদিবস রোববার (৩ এপ্রিল) লেনদেনের শুরুতে ডিএসই’র বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৩ হাজার ৬৪১ কোটি ৫৬ লাখ ৩১ হাজার ৯২১ টাকায় এবং শেষ কার্যদিবসে বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯ হাজার ৩৪৬ কোটি ৫৩ লাখ ৬৯ হাজার ২১ টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে পাঁচ হাজার ৭০৪ কোটি ৯৭ লাখ টাকা বা ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

গত সপ্তাহে পাঁচ দিনে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৪৩ কোটি ৩২ লাখ ১১ হাজার ২৩৬ টাকা। যা এর আগের সপ্তাহের চেয়ে ৩৬৫ কোটি ৮৭ লাখ টাকা বা ২১ দশমিক ৮১ শতাংশ বেশি। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৭৭ কোটি ৪৪ লাখ ৪৭ হাজার ৫৮৮ টাকা।
একই সঙ্গে গত সপ্তাহে ডিএসইতে বেড়েছে টার্নওভারের পরিমানও। গড়ে প্রতিদিন টার্নওভার দাঁড়িয়েছে ৩৩৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকায়।

যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩৩৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে টার্নওভার বেড়েছে ৭৩ কোটি ১৮ লাখ টাকা বা ২১ দশমিক ৮১ শতাংশ বেশি। সপ্তাহ শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে  ৮৫ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৯৬ শতাংশ, ডিএস৩০ সূচক বেড়েছে ৩৭ দশমিক ২৯ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ২৬ শতাংশ। আর শরীয়াহ সূচক বা ডিএসইএস বেড়েছে  ২৩ দশমিক ৭৬ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ২৬ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩৩১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৭৩টির, কমেছে ১২৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির। আর লেনদেন হয়নি ৫টি কোম্পানির শেয়ার। সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারের সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ২ দশমিক ১০ শতাংশ বেড়ে ১৪ দশমিক ৫৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

বিগত সপ্তাহে দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ৯৯ শতাংশ। সিএসই৩০ সূচক বেড়েছে ২ দশমিক ৮১ শতাংশ এবং সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স বেড়েছে ২ দশমিক ০১ শতাংশ, সিএসই৫০ সূচক বেড়েছে ২ দশমিক ৫৮ শতাংশ এবং শরীয়াহ সিএসআই সূচক বেড়েছে ২ দশমিক ৬০ শতাংশ।

সপ্তাহে সিএসইতে গড়ে মোট লেনদেন হয়েছে ২৮৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৭টির, কমেছে ৯৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির। টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৬৩ কোটি ৮৬ লাখ ২৩ হাজার টাকা।

Leave A Reply