Deshprothikhon-adv

উইন্ডিজের প্রথম, না অস্ট্রেলিয়ার চতুর্থ?

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

westindigশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা:  প্রথমবারের মতো মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠা ওয়েস্ট ইন্ডিজ কি স্বপ্নের শিরোপা জিতবে পারবে? নাকি চতুর্থবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলবে অস্ট্রেলিয়া? প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে রোববার বিকেলে। নারী ক্রিকেটের এই দুই পরাশক্তি রোববার কলকাতার ইডেন গার্ডেনে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পঞ্চম আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হবে। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায়।

ফাইনালের মঞ্চে মাঠে নামার আগে শনিবার শেষবারের মতো নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছে দুই দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সকাল ৯টায় থেকে ১২টা পর্যন্ত এবং বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত ইডেন গার্ডেনে অনুশীলন করে।

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মেগ ল্যানিং জানিয়েছেন, পুরো টুর্নামেন্ট যেভাবে খেলেছেন তার থেকেও ভালো খেলতে মুখিয়ে আছে তার দল। ম্যাচপূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে মেগ ল্যানিং বলেন, ‘জয়ের যে ক্ষুধা আমি মেয়েদের মধ্যে দেখতে পাচ্ছি, তাতে আমি মুগ্ধ। মনে হচ্ছে এবারই প্রথম আমরা কোনো ম্যাচ খেলতে যাচ্ছি। এবং এটাই আমাদের শেষ ম্যাচ।’

যদি রেকর্ড ও পরিসংখ্যানের কথা বিবেচনা করা হয় তাহলে অস্ট্রেলিয়াকে এগিয়ে রাখবেন ক্রিকেটপ্রেমিরা। কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ আট ম্যাচের একটিতেও হার নেই বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। শুধু তাই নয় বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচেও অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছে উইন্ডিজের মেয়েরা। চেন্নাইয়ে অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ১৩৯ রানের লক্ষ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয়েছিল ৯৬ রানে।

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে ৪ রানে হারানোর পর বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪৯ রানের জয় পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের নারীরা। পরের ম্যাচে শেষ বলে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১ উইকেটে হারলেও শেষ ম্যাচে ভারতকে ৩ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালে পৌঁছায় ক্যারিবীয় নারীরা।

সেমিতে তারা নিউজিল্যান্ডকে ৬ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালে নাম লেখায়। দলটির সেরা ব্যাটসম্যান ব্রিটনি কুপার সেরা সময়ে আছেন। সেমিফাইনালে ৪৮ বলে ৬১ রানের নজরকাড়া ইনিংস খেলেন কুপার। ফাইনালে একই ধরণের কোনো ইনিংস খেলতে পারলে অসিদের হুমকি হয়ে দাঁড়াবেন তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক টেলরের ভাষ্য, ‘আমরা খুব উচ্ছ্বসিত। আমরা অসিদের ভয় পাচ্ছি না। আমরা এখন যে পর্যন্ত এসেছি সেটাও অনেক বড় সাফল্য। আমাদের হারানোর কিছু নেই। প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেলতে আসায় স্বাভাবিকভাবেই আমরা উদ্বিগ্ন থাকব। তবে আমাদেরকে মাঠে সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে হবে।’

অসি অধিনায়ক ল্যাগিং নিজেও সেরা সময় পার করছেন। বিগ সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৫০ বলে ৫৫ রানের ম্যাচসেরা ইনিংস খেলেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান। অসি অধিনায়ক ফাইনাল ম্যাচ জিততে মরিয়া হয়ে আছেন। এক প্রশ্নের জবাবে ল্যাগিং বলেন, ‘আমি সব সময় বলে এসেছি আমরা ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি ট্রফি জিততে এসেছি।

আগামীকাল আমাদের শুরু থেকে আবারও নতুন করে শুরু করতে হবে। পূর্বে কী হয়েছে সেটা অতীত হয়ে গেছে। আমরা জিততে ভালোবাসি। দল হিসেবে আমরা বেশ প্রতিদ্বন্দ্বী। তবে প্রতিটি ম্যাচ গুরুত্বপূর্ণ। হয়তো আগের তিন ফাইনালের থেকে এ ফাইনালটি আরো প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হবে।’

Leave A Reply