Deshprothikhon-adv

কেয়া কসমেটিকসের উদ্যোক্তার শেয়ার বিক্রির ঘোষনা

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

keya cosmitesশেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি কেয়া কসমেটিকসের প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোক্তা কেয়া ইয়ার্ন মিলস লিমিটেড শেয়ার বেচার ঘোষণা দিয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, এই প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোক্তার কাছে থাকা কোম্পানির মোট ১৫ কোটি ৩২ লাখ ৮৬ হাজার ৪৫৯টি শেয়ার রয়েছে। এর মধ্যে ১ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার বেচবে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিষ্ঠানটি আগামী ২৮ এপ্রিলর মধ্যে শেয়ারগুলো বেচতে পারবে।

উল্লেখ, গত ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত হিসাব বছরে কেয়া কসমেটিকস শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর পুরোটাই বোনাস লভ্যাংশ। কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি কনসোলিডেটেড আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৯ পয়সা। শেয়ার প্রতি কনসোলিডেটেড প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৬৭ পয়সা।

এছাড়া, কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর-২০১৫) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৬১ পয়সা। গত বছর যা ছিল ৫৯ পয়সা। তিন সহযোগী কোম্পানি কেয়া কটন, কেয়া স্পিনিং ও কেয়া নিট ফেব্রিকসের সঙ্গে একীভূত হওয়ার পর এটিই প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন।

কেয়া কসমেটিকস সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ শেষ হওয়া প্রান্তিকে কোম্পনিটির  মোট পণ্য বিক্রির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৪৯ কোটি ৬৪ লাখ ২১ হাজার ৭২৯ টাকা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৭৫ কোটি ৩২ লাখ ৪০ হাজার ৬ টাকা। আর নিট মুনাফা ৩৬ কোটি ১৫ লাখ টাকা। আগের বছরের এই মুনাফার পরিমাণ ছিল ১০ কোটি ৫১ লাখ টাকা। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির নিট মুনাফা বেড়েছে ২৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা বা ২৪৪ শতাংশ প্রায়।

জানা গেছে, কেয়া কসমেটিকসের সঙ্গে একীভুত তিন কোম্পানির মুনাফা যোগ হওয়ায় মুনাফার এই বড় উল্লম্ফন ঘটেছে। অন্যদিকে একীভুতকরণের পর কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ও শেয়ার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় মুনাফাও ওই অনুপাতে ভাগ হয়েছে। তাই কোম্পানির ইপিএস তেমন বাড়েনি।

আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬১ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৫৯ পয়সা। এ হিসেবে ইপিএস বেড়েছে ২ পয়সা। প্রথম প্রান্তিকের ইপিএসকে বার্ষিকীকরণ করলে সম্ভাব্য ইপিএস দাঁড়ায় ২ টাকা ৪৪ পয়সা। আগের অর্থবছরে যা ছিল ২ টাকা ৩৬ পয়সা। কোম্পানিটি ২০০১ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়।

Leave A Reply