Deshprothikhon-adv

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট ’র শেয়ার নিয়ে কারসাজি

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

lubricants lagoআফজাল হোসেন লাভলু, শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতের কোম্পানি ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট ’র শেয়ার নিয়ে কারসাজির অভিযোগ করছেন বিনিয়োগকারীরা। টানা কয়েকদিন ধরেই ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট লিমিটেডের শেয়ার দর ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। কোম্পানিটির শেয়ার দর গত পাঁচ কার্যদিবসে বেড়েছে ২১৪ টাকা।

এদিকে, কোম্পানিটির শেয়ার দর ধারাবাহিকভাবে বাড়ার কারণ জানতে চেয়ে নোটিশ দেয় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। জবাবে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে দর বাড়ার পেছনে কোনো ধরনের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই। ফলে অকারণেই এভাবে শেয়ার দর বাড়ছে।

বিশ্লেষণে, দেখা গেছে, কোম্পানিটির শেয়ার দর গত ৩ মার্চ ছিল ৫৫০ টাকা। গত কার্যদিবস বৃহস্পতিবার কোম্পানির শেয়ার দর বেড়ে দাঁড়ায় ৭৬৪ টাকা ১০ পয়সা। মাত্র ৫ কার্যদিবসে কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে ২১৪ টাকা ১০ পয়সা। এটাকে অস্বাভাবিক মনে করে কোম্পানিকে নোটিশ প্রদান করে ডিএসই। কিন্তু কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দর বাড়ার কোনো ধরনের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য তাদের কাছে নেই।

এর আগে ১৭ জানুয়ারি প্রকাশিত অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদনে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) অস্বাভাবিক প্রবৃদ্ধি দেখিয়েছে বলে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে।

আর এ কারণেই ওই সময় কোম্পানিটি শেয়ার দর অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। আর অভিযোগটি আমলে নিয়ে কোম্পানিটির আর্থিক প্রতিবেদনে কোনো ধরনের কারসাজি করেছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটিও গঠন করেছিল নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বিনিয়োগকারীরা বলছেন, কোম্পানিটির শেয়ার দর কয়েকদিন পরপর এভাবে বাড়তে থাকে। ডিএসই নোটিশ দিলে দর বাড়ার পেছনে কোনো ধরনের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানানো হয় কোম্পানির পক্ষ থেকে। তবে বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত হলে কারসাজি জড়িত কিনা তা খুঁজে বের করা যাবে বলে মনে করছেন তারা।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলেন, কোম্পানিটি বিরুদ্ধে অর্ধবার্ষিকী আর্থিক প্রতিবেদনে প্রবৃদ্ধি বেশি দেখানোর অভিযোগ ওঠেছিল। তা তদন্ত করতে নিয়ন্ত্রণ সংস্থা একটি কমিটিও গঠন করেছে। তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করলেই বিনিয়োগকারীদের সংশয় দূর হবে বলে মনে করছেন তারা।

Leave A Reply