Deshprothikhon-adv

পুঁজিবাজারে আত্মহত্যাকারীদের মধ্যে জরিমানার অর্থ বিতরণের পরামর্শ

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

পুঁজিবাজারে কেলেঙ্কারি মামলায় জরিমানার অর্থ স্মরনকালের দরপতনে আত্মহত্যা করা বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বিতরণের পরামর্শ দিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। গত রোববার চিটাগং সিমেন্টের শেয়ার কেলেঙ্কারি মামলা চলাকালে ট্রাইব্যুনালের বিচারক হুমায়ুন কবীর ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের মধ্যে জরিমানার অর্থ বিতরণের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ পরামর্শ দেন।

এ সময় খুরশীদ আলম ট্রাইব্যুনালকে বলেন, শেয়ারবাজার ধসে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা তাদের পুঁজি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছেন। তাদের পারিবারিক জীবনে নেমে এসেছে নানা বিপর্যয়। তবে এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের পরিবার যারা পুঁজি হারিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

এ জন্য যারা শেয়ারবাজারে পুঁজি হারিয়ে আত্মহত্যা করেছে তাদের পরিবারের মধ্যে জরিমানার অর্থ বিতরণ করা উচিত বলে মত প্রকাশ করেন তিনি। তবে ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। ২০১০ সালে শেয়ারবাজারে ধসে পুঁজি হারিয়ে ২০১১ সালের ৩০ জানুয়ারি ঢাকায় আত্মহত্যা করেন লিয়াকত আলী (যুবরাজ), ২ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে দিলদার হোসেন নামে এক বিনিয়োগকারী আত্মহত্যা করেন বলে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

এ ছাড়া ২০১২ সালের ২২ ডিসেম্বর লগ্নিকৃত অর্থ হারিয়ে ঋণগ্রস্ত হওয়ায় মাজহারুল হক (৩৫) নামে এবি ব্যাংকের এক কর্মকর্তা ভৈরব পৌর এলাকার রানী বাজারে নিজ বাসায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন বলে জানা গেছে। ২৯ মার্চ সামসুল হক সরদার শাহিন নামের এক বড় বিনিয়োগকারী সিলেটে আত্মহত্যা করেন বলে দাবি করা হয়েছে।

পুঁজি হারানোর যন্ত্রণা সইতে না পেরে রাজধানীর শান্তিনগরে শাহাদাৎ হোসেন, বরিশালে মাসুক-উর রহমান সুমন ও র‌্যাপিড সিকিউরিটিজ হাউজে শেয়ার বিনিয়োগকারী মফিজুল ইসলাম স্ট্রোক করে মারা যান বলে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

এদিকে রবিবার চিটাগং সিমেন্ট শেয়ার কেলেঙ্কারি মামলায় রবিবার আসামি আবু তৈয়বের পক্ষে ট্রাইব্যুনালে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি এ সময় বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যখন ক্ষমতায় আসে, তখনই শেয়ারবাজারে ধস নামে। আওয়ামী লীগ সরকার যখন ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসে তখন শেয়ারবাজারে ধস নেমেছিল। আবার ২০১০ সালেও যখন ক্ষমতায় তখন আবার ধস নামে।

বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠনের পরে বিএসইসি কোনো মামলা দায়ের না করায় রবিবার আদালত চলাকালে বিচারক হুমায়ুন কবীর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আর এ ঘটনাকে দুর্ভাগ্যজনক বলে মন্তব্য করেন বিএসইসির আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

বিশেষ প্রতিনিধি

Leave A Reply