Deshprothikhon-adv

সপ্তাহের ব্যবধানে লেনদেন কমেছে ৩০ শতাংশ

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

পুঁজিবাজারে লেনদেনের পরিমাণ কমছেই। সপ্তাহের ব্যবধানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন কমেছে ৩০ শতাংশ। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে ১ হাজার ৯১৮ কোটি টাকা লেনদেন হলেও বিদায়ী সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৩৪২ কোটি। এ হিসাবে সপ্তাহের ব্যবধানে লেনদেন কমেছে ৩০ শতাংশ। অবশ্য দুর্গাপূজার ছুটির কারণে বৃহস্পতিবার শেয়ারবাজারে লেনদেন বন্ধ থাকায় বিদায়ী সপ্তাহে একদিন কম লেনদেন হয়েছে। তবে গড় হিসাবে আগের সপ্তাহের তুলনায় লেনদেন কমেছে ১২.৫৩ শতাংশ।

আগের সপ্তাহে ডিএসইতে গড় লেনদেন হয়েছিল ৩৮৩ কোটি ৫৭ লাখ টাকা। আর বিদায়ী সপ্তাহে তা কমে হয়েছে ৩৩৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা। কয়েক সপ্তাহ আগেও ডিএসইতে গড়ে ৪৫০ কোটি টাকা লেনদেন হতো। কিন্তু গত কয়েক সপ্তাহে লেনদেনের পরিমাণ ধারাবাহিকভাবে কমছে। এর ফলে গড় লেনদেন নেমে এসেছে ৩৫০ কোটি টাকারও নিচে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন,প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ কমে যাওয়ার কারণে বাজারে লেনদেনের পরিমাণ কমছে। এ ছাড়া বাজারে ধারাবাহিক পতনের কারণে ব্যক্তি শ্রেণীর বিনিয়োগকারীরাও বাজারে তেমনভাবে সক্রিয় নন। এদিকে বিদায়ী সপ্তাহেও সূচকের পতন ঘটেছে। আগের সপ্তাহের তুলনায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্সের (ডিএসইএক্স) পতন হয়েছে ২৮.৯৫ পয়েন্ট।

৪৬৭৬.৬৩ পয়েন্ট দিয়ে শুরু করার পর সপ্তাহ শেষে ডিএসই সূচক ৪৬৪৭.৬৮ পয়েন্টে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। আগের সপ্তাহে সূচকের পতন হয়েছিল ১০৪.৭৩ পয়েন্ট। বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩২৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৭টির, কমেছে ২০১টির ও অপরিবর্তিত ছিল ১৮টির দর। ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণ বেড়েছে। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণ ছিল ৩ লাখ ২১ হাজার ৩৮৫ কোটি টাকা।

সপ্তাহ শেষে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ২২ হাজার কোটি টাকায়। সপ্তাহ শেষে বাজার মূলধন বেড়েছে ০.১৯ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট। কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১২৩ কোটি ২৭ লাখ ৩০ হাজার টাকার। সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৯.১৯ শতাংশই লেনদেন হয়েছে এ কোম্পানিটির। তবে আগের সপ্তাহের তুলনায় কোম্পানিটির লেনদেন কমেছে ০.৫৬ শতাংশ।

আগের সপ্তাহের তুলনায় ১.৯০ শতাংশ লেনদেন কমার পরও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বেক্সিমকো ফার্মা। ৫২ কোটি ৫৬ লাখ ৫০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এ কোম্পানির। যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩.৯২ শতাংশ।

লেনদেনের তৃতীয় স্থানে থাকা কেডিএস এক্সেসরিজের সপ্তাহজুড়ে ৪৭ কোটি ৪৭ লাখ ৬৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এ ছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশে থাকা অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে- বিএসআরএম স্টিল, গ্রামীণফোন, এমারল্ড অয়েল, মোজাফ্ফর হোসাইন স্পিনিং মিলস, আমান ফিড, সাইফ পাওয়ারটেক, ইফাদ অটোস।
স্টাফ রিপোর্টার

Leave A Reply