Deshprothikhon-adv

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নিয়ে লুকোচুরি!

0
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterPin on Pinterest0Share on LinkedIn0Share on Yummly0Share on StumbleUpon0Share on Reddit0Flattr the authorEmail this to someonePrint this page

শেয়ারবার্তা ২৪ ডটকম, ঢাকা:  পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্রখাতের কোম্পানি প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের বিরুদ্ধে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নিয়ে লুকোচুরি করার অভিযোগ উঠেছে। কোম্পানির সহযোগী প্রতিষ্ঠান প্যারামাউন্ট বিট্র্যাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম সম্প্রতি সরকারের কাছে বিদ্যুৎ বিক্রির করার বিষয়ে একটি চুক্তি সই করলেও তা প্রকাশ করেনি।

মূল্য সংবেদনশীল এ তথ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও স্টক এক্সচেঞ্জকে জানায়নি; সাধারণ শেয়ারহোল্ডার ও বিনিয়োগকারীদের জানানোর জন্য সংবাদপত্রে কোনো বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি।

উল্লেখ, গত ১৫ অক্টোবর বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিপিডিপি) সঙ্গে বিদ্যুৎ কেনা-বেচা সংক্রান্ত চুক্তি করে প্যারামাউন্ট বিট্র্যাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম। চুক্তি অনুসারে, প্যারামাউন্ট বিট্র্যাক এনার্জি কনসোর্টিয়ামের স্থাপিত বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনবে বিপিডিপি তথা সরকার। প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ১৯ টাকা ৯৬ পয়সা। বিদ্যুৎ ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিপিডিপির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

বিদ্যুৎ বিক্রি সংক্রান্ত এই চুক্তি সম্পাদনের তথ্য প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত আড়াল করে রেখেছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থাসহ সংশ্লিষ্টদের জানায়নি। বিধি অনুসারে, এ ধরনের চুক্তি বা যে কোনো ধরনের মূল্য সংবেদনশীল সিদ্ধান্ত গ্রহণের আধা ঘন্টার মধ্যে তা নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে অবহিত করতে হয়।

পরবর্তীতে তা মূল্য সংবেদনশীল তথ্য হিসেবে সংবাদপত্রেও প্রকাশ করতে হয়। উল্লেখ, প্যারামাউন্ট বি ট্রাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম হচ্ছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ও বাংলাট্র্যাকের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত একটি কোম্পানি। এই কোম্পানির ৪৫ ভাগ শেয়ারের মালিক প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেড।

এ বিষয়ে পুঁজিবাজারের প্রাইমারি রেগুলেটর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএএম মাজেদুর রহমান বলেন, কোম্পানিটি (প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল) যদি মূল্য সংবেদনশীল তথ্য আড়াল করে থাকে, তাহলে তা তালিকাভুক্তি বিধিমালার সুষ্পষ্ট লংঘন। আমরা বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রথমে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইলের কোম্পানি সচিব মোঃ রবিউল ইসলাম চুক্তির বিষয়টি অস্বীকার করেন। কিন্তু চুক্তির ছবিসহ অন্যান্য তথ্য দৈনিক দেশ প্রতিক্ষণের হাতে আছে জানানোর পর তিনি বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এ ধরনের চুক্তি মূল্যসংবেদনশীল তথ্যের মধ্যে পড়ে না।

উল্লেখ, চলতি বছরের ৭ ফেব্রæয়ারি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে প্যারামাউন্ট বি ট্রাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম লিমিটেডের বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়। প্রস্তাব অনুসারে এ কনসোর্টিয়াম সিরাজগঞ্জ জেলার বাঘাবাড়িতে ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার এইচএসডি তথা ফার্নেস তেল ভিত্তিক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করবে।

বিল্ড, ওন অ্যান্ড অপারেট (বিওও) পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি পরিচালিত হবে। অর্থাৎ প্যারামাউন্ট বি ট্রাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম নিজ অর্থে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণ করবে, এই কনসোর্টিয়াম কেন্দ্রটির মালিক হবে এবং নিজ তত্ত¡াবধানে পরিচালনা করবে। এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটির মেয়াদ হবে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করার পর থেকে ৫ বছর।

মেয়াদে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি স্থাপন করবে প্যারামাউন্ট বি ট্রাক এনার্জি কনসোর্টিয়াম লিমিটেড। এই সময় পর্যন্ত কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ কিনবে সরকার। কেন্দ্রটির উৎপাদিত বিদ্যুতের প্রতি ঘন্টা কিলোওয়াট বিদ্যুতের দাম ধরা হয় ১৯ দশমিক ৯৬৩৯ টাকা। অনুমোদনের শর্ত অনুসারে, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বিদ্যুত কেন্দ্রটিকে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করতে হবে।

Comments are closed.